• শনি. জানু ২৮, ২০২৩

ইউক্রেন যুদ্ধে লড়াইকারী সেনাদের মায়েদের সঙ্গে বৈঠকে যা বললেন পুতিন

নভে ২৬, ২০২২

ইউক্রেন যুদ্ধে লড়াইকারী সেনাদের মায়েদের সঙ্গে বৈঠকে যা বললেন পুতিন

ইউক্রেন যুদ্ধে লড়াইরত এবং কিছু নিহত রুশ সেনার মায়েদের

সঙ্গে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বৈঠক করেছেন।

গতকাল শুক্রবার হওয়া ওই বৈঠকে তিনি তাঁদের সান্ত্বনা দিয়ে বলেছেন,

‘আপনাদের ব্যথা আমরা অনুভব করতে পারছি।’ ব্রিটিশ

সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ইউক্রেনে পুতিনের অভিযান নিয়ে রাশিয়ায় ক্রমাগত তাঁর বিরোধিতা বাড়ছে।

সেনাদের মায়েদের কেউ কেউ প্রকাশ্যে অভিযোগ করেছেন,

তাঁদের ছেলেদের সামান্য প্রশিক্ষণ দিয়েই যুদ্ধে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তাঁদের পর্যাপ্ত অস্ত্র দেওয়া হয়নি। শীতকালে যুদ্ধ করার মতো পর্যাপ্ত গরম কাপড়ও দেওয়া হয়নি।

এমন অবস্থায় গতকাল কয়েকজন সেনার মায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন

পুতিন। মস্কোর কাছে রুশ প্রেসিডেন্টের রাষ্ট্রীয় বাসভবনে গতকাল

বৈঠকটি হয়। ভিডিও ফুটেজে এদিন পুতিনকে ১৭ জন মায়ের

সঙ্গে বসে কথা বলতে দেখা গেছে। ওই মায়েদের কেউ কেউ

শোকের প্রতীক হিসেবে মাথায় কালো রঙের ওড়না জড়িয়ে রেখেছিলেন।

উদ্বোধনী বক্তব্যে পুতিন বলেন, ‘সন্তান হারানোর শূন্যতা

কোনো কিছু দিয়েই পূরণ হওয়ার নয়।’ রাশিয়ার রাষ্ট্রীয়

সংবাদমাধ্যমে তাঁর বক্তব্যটি প্রচার করা হয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট ওই সব মাকে উদ্দেশ করে বলেন,

‘আপনাদের জানাতে চাই, ব্যক্তিগতভাবে আমি এবং

দেশের সব নেতৃত্ব মিলে আমরা এ ব্যথা বোধ করতে পারছি।’

যুদ্ধে সন্তান হারানো একজন মাকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন,

‘কিছু মানুষ ভদকা খেয়ে মারা যান এবং অগোচরে জীবন কাটিয়ে দেন,

কিন্তু আপনার ছেলে সত্যিকারের জীবন কাটিয়েছে এবং লক্ষ্য অর্জন

করেছে। তার মৃত্যু বৃথা যাবে না।’ তিনি আরও বলেন,

মাঝেমধ্যেই তিনি যুদ্ধক্ষেত্রে নিযুক্ত রুশ সেনাদের সঙ্গে সরাসরি

কথা বলেন। এসব সেনাকে বীর বলে উল্লেখ করেন তিনি।

যুদ্ধ নিয়ে টিভি ও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া ভুয়া ও বানোয়াট তথ্য

বিশ্বাস না করার জন্য ওই সব নারীর প্রতি রুশ প্রেসিডেন্ট আহ্বান জানিয়েছেন।

বৈঠকটি শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে

আলোচ্য বিষয়বস্তু প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে ওই সব নারীকে

পুতিনপন্থী মুভমেন্টের অংশ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

সমালোচকেরা বলছেন, ইচ্ছা করেই এ মায়েদের বৈঠকের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে।

ওই নারীরা রাশিয়ার বিভিন্ন জায়গা থেকে এসেছিলেন।

এর মধ্যে অন্তত একজন নারী ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রাশিয়া

ঘোষিত লুহানস্ক প্রজাতন্ত্র থেকে এসেছেন। চলতি বছরের

শুরুর দিকে অঞ্চলটির স্বাধীনতা ঘোষণা করে মস্কো।

শুক্রবারের বৈঠকে ক্রেমলিন–সমর্থিত অল রাশান পপুলার

ফ্রন্টের এক সদস্য ছিলেন। রুশ সেনাদের জন্য মানবিক

সহায়তা সংগ্রহকারী সংগঠন কমব্যাট ব্রাদারহুডের একজন সদস্যও সেখানে ছিলেন।

জ্যেষ্ঠ মার্কিন জেনারেল মার্ক মিলির ভাষ্য অনুযায়ী,

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেন যুদ্ধে প্রায় এক লাখ

রুশ সেনা এবং এক লাখ ইউক্রেনীয় সেনা হতাহত হয়েছেন।

আরও আপডেট নিউজ জানতে ভিজিট করুন