• বুধ. ফেব্রু ১, ২০২৩

গিনেজ বুকে নাম লেখালেন আরেক দর্শক কার্লোস মাসলাসোন

ডিসে ৭, ২০২২

গিনেজ বুকে নাম লেখালেন আরেক দর্শক কার্লোস মাসলাসোন

ব্রাজিলের দর্শক ড্যানিয়েল যিনি সেই ১৯৭৮ সাল থেকে বিশ্বকাপ ফুটবলের খেলা দেখছেন।

কাতার বিশ্বকাপ তার মাঠে বসে দেখা ১১তম আসর। যিনি

দাবি করেছেন গিনেজ রেকর্ডধারী বিশ্বকাপের দর্শক হিসেবে।

এবার পাওয়া গেল আরেক ফুটবল ভক্তকে। যিনি এক বিশ্বকাপের ৩২টি ম্যাচ দেখেছেন গ্যালারিতে বসে।

এতেই তিনি গড়ে ফেলেছেন বিশ্ব রেকর্ড। এই ব্যক্তির নাম কার্লোস মাসলাসোন।

আর্জেন্টিনার এই সাবেক ব্যাংকার কাতার বিশ্বকাপে তিনি

৩২টি ম্যাচ দেখে ভঙ্গ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার থুলানি এনগোবোকে।

এই এনগোবো দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপের ৩১টি ম্যাচ দেখেছিলেন।

এ জন্য অবশ্য দক্ষিণ আফ্রিকান এই সরকারি কর্মকর্তাকে হাজার মাইল পাড়ি দিতে হয়েছিল।

এনগোবোর আগে সর্বোচ্চ এক আসরে ২০ ম্যাচ দেখেছিলেন এক দর্শক।

কাতার বিশ্বকাপে ৫ ডিসেম্বর স্টেডিয়াম ৯৭৪ এ ব্রাজিল

এবং দক্ষিণ কোরিয়ার খেলা দেখে কার্লোস মাসলাসোন পেছনে ফেলেছেন এনগোবোকে।

৫ তারিখে তিনি আল জানুব স্টেডিয়ামে জাপান-ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ দেখেই চলে আসেন স্টেডিয়াম ৯৭৪ এ ব্রাজিল-কোরিয়া খেলা দেখতে।

এতেই তিনি এখন গিনেজ বুকে নাম লেখানো দর্শক হয়েছেন।

এর আগে মাসলাসোন এক দিনে চার খেলা দেখেও করেছেন বিশ্ব রেকর্ড।

২৩ নভেম্বর তিনি একই দিনে মাঠে ছিলেন মরক্কো-ক্রোয়েশিয়া, জার্মানী-জাপান, স্পেন-কোস্টারিকা এবং বেলজিয়াম-কানাডার ম্যাচে।

প্রথমে আল বায়েত স্টেডিয়ামে। এরপর সেখান থেকে খালিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম হয়ে আল থুমামা স্টেডিয়াম ঘুরে চলে আসেন আহমেদন বিন আলী স্টেডিয়ামে।

এখন তার লক্ষ্য কাতার বিশ্বকাপের ৪৩টি খেলা পর্যন্ত দেখা। এক দিনে চারটি ম্যাচ দেখতে গিয়ে তাকে খাবার দাবার সবই করতে হয়েছে গাড়িতে।

এ জন্য তাকে টিকেট কিনতে হয়েছে ২৪০ ডলার থেকে ১ হাজার ৪৫০ ডলার দিয়ে।

এরপরও দিনে চার ম্যাচ দেখার জন্য তিনি ধন্যবাদ দেন কাতারকে।

যারা কম দূরত্বের মধ্যে স্টেডিয়ামগুলো স্থাপন করেছে।

ফিফাও এক আসরে সর্বোচ্চ ৩২ ম্যাচ দেখার জন্য ধন্যবাদ দিয়েছে মাসলসোনকে।

আরও আপডেট নিউজ জানতে ভিজিট করুন