• শুক্র. ডিসে ২, ২০২২

নর্ড স্ট্রিমে হামলার পেছনে রয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো, প্রমাণ পাওয়া গেছে: রাশিয়া

সেপ্টে ৩০, ২০২২
নর্ড স্ট্রিমে হামলার পেছনে রয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো, প্রমাণ পাওয়া গেছে: রাশিয়া

নর্ড স্ট্রিম গ্যাস পাইপলাইনে বিস্ফোরণের পেছনে পশ্চিমাদের হাত রয়েছে বলে দাবি করেছে রাশিয়া।

দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা এসভিআর-এর প্রধান সের্গেই নারিশকিন শুক্রবার বলেন, আমাদের কাছে এমন দাবির পেছনে যথেষ্ট তথ্য প্রমাণও রয়েছে।

এই সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করেছে পশ্চিমারা এবং তার নিখুঁত প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ খবর দিয়েছে আরটি।

নারিশকিন আরও দাবি করেন, পশ্চিমা দেশগুলো এখন এই বিস্ফোরণের সঙ্গে তাদের যুক্ত থাকার

বিষয়টি চাপা দেয়ার চেষ্টা করছে এবং তাদের উদ্দেশ্য হচ্ছে ঘটনার মূল হোতাদের রক্ষা করা।

বিস্ফোরণের পরপরই একাধিক পশ্চিমা দেশ সেখানে অভিযান চালায়। তারা সেখানে আসল দোষীকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে।

গত সোমবার রাশিয়া ও জার্মানির মধ্যে সমুদ্রের তলদেশ দিয়ে যাওয়া গ্যাস লাইনে ফুটোর খবর পাওয়া যায়।

এরপর অন্তত ৪ জায়গায় এই ফুটো শনাক্ত করা হয়েছে। সুইডেন জানিয়েছে, ওই এলাকায় বড় ধরণের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে।

রাশিয়া ও পশ্চিমা দেশগুলো উভয়েই একে অপরকে দায়ী করেছে এই বিস্ফোরণের জন্য।

রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের সেক্রেটারি নিকোলায় প্যাট্রুশেভ জানান, এই হামলার কারণে সবথেকে বেশি সুবিধা পাবে যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে ১৯৮০ সালের দিকে নিকারাগুয়ার তেল অবকাঠামোতে এমন হামলা চালিয়েছিল সিআইএ।
যদিও পশ্চিমা গণমাধ্যমে গুঞ্জন ছড়ানো হচ্ছে যে, রাশিয়াই রয়েছে এই পাইপলাইনে হামলার পেছনে। এর মাধ্যমে এরইমধ্যে চাপে থাকা ইউরোপীয় ইউনিয়নকে জ্বালানি নিয়ে আরও চাপে ফেলতে চায় মস্কো। যদিও মস্কো এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

পোল্যান্ডের এমপি এবং সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী র্যা ডোস্ল সিকোরস্কি এক টুইট বার্তায় এই হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেন। তিনি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, এর ফলে রাশিয়াকে এখন ভূমি দিয়ে পশ্চিম ইউরোপের দেশগুলোতে গ্যাস পাঠাতে হবে আর এই গ্যাসলাইন হবে পোল্যান্ডের উপর দিয়ে।

যদিও কিছুক্ষণ পর তিনি ওই টুইট ডিলিট করে দেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন নর্ড স্ট্রিমের উপরে হামলাকে ‘নজিরবিহীন নাশকতা’ বলে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, এই হামলা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের শামিল।

আরও আপডেট নিউজ জানতে ভিজিট করুন