• শনি. জানু ২৮, ২০২৩

বিশ্ব গণমাধ্যমে মেসি ও আর্জেন্টিনার বন্দনা

ডিসে ১৯, ২০২২
বিশ্ব গণমাধ্যমে মেসি ও আর্জেন্টিনার বন্দনা

বিশ্ব গণমাধ্যমে মেসি ও আর্জেন্টিনার বন্দনা

কিংবদন্তী, সর্বশ্রেষ্ঠ, অমর- লিওনেল মেসির নেতৃত্বে বিশ্বকাপে এ যাবতকালের অন্যতম নাটকীয় ফাইনালে ফ্রান্সকে

পরাজিত করে আর্জেন্টিনার শিরোপা জয়ের পর বিশ্বজুড়ে গণমাধ্যমগুলো এভাবে এই জয়কে বর্ণনা করেছে।

ফ্রান্সকে টাইব্রেকারে পরাজিত করে লা আলবিসেলেস্তেরা তৃতীয়বারের মত বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তুলেছে।

সর্বশেষ ১৯৮৬ সালে দিয়েগো ম্যারাডোনার হাত ধরে শিরোপা এসেছিল আর্জেন্টিনার ঘরে।

আর কাল ম্যারাডোনার যোগ্য উত্তরসূরী মেসির হাতে উঠলো বিশ্বসেরার ট্রফি। পুরো আর্জেন্টিনা জুড়ে এখন

আনন্দ-উৎসব চলছে, বিশ্বমিডিয়াও এই মুহূর্তগুলোকে ধরে রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে। আর্জেন্টিনার নতুন

প্রজন্মের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় মেসিকে স্যালুট জানাতে কোনো গণমাধ্যমই ভুল করেনি।

মেসির বিশ্বকাপ ট্রফি হাতে তোলা সতীর্থদের সাথে ছবিটি বিশ্বের সব নিউজ পোর্টাল , সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সব দৈনিকের প্রথম পাতায় শোভা পাচ্ছে।

আর্জেন্টিনার শীর্ষ দৈনিক ডেইলি লা ন্যাসিওনের হেডলাইন ছিল, ‘ইতিহাসের সর্বশ্রেষ্ঠ ফাইনাল’, আরেক দৈনিক ক্লারিন একে ‘অবিস্মরণীয়’ ম্যাচ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।

স্পোর্টস ডেইল ওলের হোমপেজে লেখা হয়েছে, ‘আমরা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন’।

কালকের ফাইনালটি ছিল মেসি ও ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পের মধ্যে একে অপরকে ছাড়িয়ে যাওয়ার এক

অঘোষিত লড়াই। আর এজন্য এই দুই দলের সমর্থক ছাড়া অন্যদেরও ম্যাচটি মোটেই হতাশ করেনি। মেসি যেখানে

স্পট কিক থেকে দুই গোল করে আর্জেন্টিনাকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছে সেখানে এমবাপ্পে হ্যাটট্রিকসহ টাইব্রেকারে প্রথম শটেও গোল করেছেন।

ফ্রেঞ্চ স্পোর্টস ডেইলি এল’ইকুয়েপের প্রথম পাতার হেডলাইন ছিল, ‘মাথা উঁচু রাখো।’ এর নিচে এমবাপ্পের গোল্ডেন

বুট ট্রফি হাতে নিয়ে বিশ্বকাপে ট্রফির পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার ছবিটি দেয়া হয়েছে।

লি ফিগারো এমবাপ্পের এই প্রয়াসকে ‘নায়োকোচিত’ হিসেবে ব্যাখ্যা করেছে। ডেইলি লিবারেশন তাদের প্রথম পাতায়

মেসি ও এমবাপ্পের একসাথে একটি ছবি দিয়ে হেডলাইনে লিখেছে, ‘কিংবদন্তী’।

ক্লাব ক্যারিয়ারে সম্ভাব্য সবকটি শিরোপা জয় করা হলেও জাতীয় দলের জার্সি গায়ে মেসির আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার

নিয়ে অনেকের মধ্যেই দ্বিধা কাজ করতো। বিশ্বকাপের শিরোপা জয় করে সেসব সমালোচকদের জবাব দিয়ে দিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই সুপারস্টার।

ব্রিটেনে দ্য টাইমস তাদের প্রথম পাতায় লিখেছে সর্বশ্রেষ্ঠ একটি ফাইনালে আধুনিক মাস্টারদের যুদ্ধে জয়ী হয়েছে মেসি।

পত্রিকাটির ক্রীড়া পাতায় মেসিকে ‘দ্য গ্রেটেস্ট’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

দ্য মিরর তাকে ‘গ্রেটেস্ট অব অল টাইম (জিওএটি)’ বলতে দ্বিধা করেনি। দ্য সান লিখেছে, ‘বিশ্বকাপ এখন ঈশ্বরের হাতে’।

জার্মানিতে সুডাচে জেইটাংয়ের হেডলাইন ছিল, ‘মেসির জন্য এটা ঈশ্বরের পা।’

এমনকি ব্রাজিলেও সব দৈনিকে মেসির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তাকে ফুটবলের অন্যতম বড় তারকা হিসেবে আখ্যা দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট লিখেছে, মেসি শেষ পর্যন্ত অমর একটি ফাইনালের শিরোপা জিতে নিল।

স্প্যানিশ এল পেইস দৈনিকে লেখা হয়েছে, মেসি ফাইনালের ফাইনাল শিরোপা জয় করেছে।

আরও আপডেট নিউজ জানতে ভিজিট করুন