• শনি. জানু ২৮, ২০২৩

ম্যাচের আগে চার্জ দিতে হয় বিশ্বকাপের এই বল!

ডিসে ১, ২০২২

ম্যাচের আগে চার্জ দিতে হয় বিশ্বকাপের এই বল!

কাতার বিশ্বকাপের বলের নাম আগে জানা গেছে। এবারের বলের নাম ‘আল রিহলা’।

মার্কিন এক সংস্থা এবারের বল তৈরি করেছে। সম্প্রতি সেই

বলের একাধিক ছবি ভাইরাল হয়েছে সামাজিক

যোগোযোগ মাধ্যমে, যা দেখে অবাক হয়েছে গোটা বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীরা।

দেখা গেছে, বলের একটা অংশ খুলে তাতে চার্জ দেওয়া হচ্ছে।

ঠিক মোবাইল, ল্যাপটপের মতো। আর একটি ছবিতে দেখা গেছে,

পাশাপাশি চারটি বল রাখা। প্রতিটিতেই চার্জ দেওয়া হচ্ছে।

কিন্তু কেন এবারের বলে চার্জ দিতে হচ্ছে? এর পেছনের রহস্য কী?

বিষয়টি স্পষ্ট করেছেন বলের নির্মাতারাই। আসলে

এবারের বল বাকি সবগুলোর থেকে আলাদা। বলের

ভেতরে সেন্সর বসানো রয়েছে। ম্যাচের সময় সেগুলো প্রতি মুহূর্তে তথ্য পাঠাচ্ছে সার্ভারে।

সেকেন্ডে ৫০০ বার তথ্য পাঠানো হচ্ছে। প্রতিবার বলের

সঙ্গে কোনও কিছু স্পর্শ হলে নির্ভুল তথ্য চলে যাচ্ছে

সার্ভারে। সেই সেন্সরের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে একটি ব্যাটারি,

যার ওজন ১৪ গ্রাম। সেই ব্যাটারিকেই ম্যাচের আগে চার্জ

দিতে হচ্ছে। একবার চার্জ দিলে ছ’ঘণ্টা ব্যাটারির আয়ু থাকে।

নির্ভুল তথ্য পেতে প্রতি ম্যাচের আগে বল চার্জ দেওয়া জরুরি।

আল রিহলা বলের গুরুত্ব বোঝা গেছে পর্তুগাল বনাম উরুগুয়ে ম্যাচে।

ওই ম্যাচে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর একটি গোল নিয়ে বিতর্ক তৈরি

হয়েছিল। বলের সেন্সর থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ফিফা

জানিয়ে দেয়, রোনালদোর সঙ্গে বলের কোনও স্পর্শই

হয়নি। ফলে সেই গোল দেওয়া হয় ব্রুনো ফের্নান্দেসকে।

বল প্রস্তুতকারী সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “আমাদের

যে প্রযুক্তি রয়েছে তা বলছে, রোনালদোর কোনও স্পর্শ

ওই সময় বলে লাগেনি। বল গোলের দিকে যাওয়ার সময়

যে স্পন্দন দেকা গেছে, তাতে এটা স্পষ্ট যে কোনও রকম

ছোঁয়া লাগেনি। এবারের বিশ্বকাপে আল রিহলা নামে যে

বল ব্যবহার করা হচ্ছে, সেটার মধ্যে সেন্সর লাগানো

আছে। সেটার সাহায্যেই আমরা বলতে পারি যে, বল রোনালদোর মাথায় লাগেনি। ”

সূত্র: ডেইলি মেইল, স্পোর্ট বাইবেল

আরও আপডেট নিউজ জানতে ভিজিট করুন