• শুক্র. ডিসে ২, ২০২২

রংপুরে গণসমাবেশকে ঘিরে বিএনপির বিশাল শোডাউন, কেউ কেউ লাঠি হাতে

অক্টো ২৯, ২০২২
রংপুরে

রংপুরে বিএনপির গণসমাবেশ ঘিরে শুক্রবার রাত থেকেই শো ডাউনের নগরীতে পরিণত হতে শুরু করে।

বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে নেতা-কর্মীরা সমাবেশস্থলে জড়ো হতে শুরু করে। রংপুর বিভাগের ৮ জেলা ছাড়াও উত্তরাঞ্চলের অন্যান্য জেলা থেকে নেতা-কর্মীরা এসেছেন।

সামাবেশস্থলসহ আশপাশ এলাকা বিএনপি নেতা-কর্মীদের দখলে রয়েছে।

শনিবার সকালে রংপুরে বিএনপি’র বিভাগীয় গণসমাবেশে অংশ নিতে নগরীতে লাঠি হাতে শোডাউন দিতে দেখা গেছে একদল নেতা-কর্মীদের।

লালমনিরহাট থেকে আসা নেতা-কর্মীদের একটি শোডাউনে দেখা গেছে  প্রায় প্রত্যেকের হাতে  লাঠি।

কারো কারো হাতে জাতীয় পতাকা ও ধানের শিষের সাথে বড় বড় লাঠি রয়েছে।

প্রতিরোধের  প্রস্তুতি নিয়ে লাঠি হাতে সমাবেশে এসেছেন বলে জানিয়েছেন অংশ নেয়া নেতাকর্মীরা।

সকাল ১১ টার দিকে  লালমনিরহাট থেকে আসা একটা বড় মিছিল নগরীর বিভিন্ন সড়কে শোডাউন  দেয়ার সময়  তাদের হাতে এই লাঠি দেখা যায়।

এসময়  নেতা-কর্মীরা আসাদুল হাবীব দুলু’র নামে শ্লোগান দিতে শোনা যায়।

এসময় সাইফুর ইসলাম নামে বিএনপির এক কর্মী বলেন, রাজপথে নেমেছি, যেকোনো মূল্যে রাজপথে থাকব।

ফয়সালা হবে রাজপথে।  আমাদের কেউ বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে আমি যাতে প্রতিহত করতে পারি এজন্য লাঠি নিয়ে এসেছি।

এছাড়া বিভিন্ন জেলা থেকে আগত নেতাকর্মীরা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ বিভিন্ন দাবি দাওয়া সম্বলিত ব্যানার পোস্টার নিয়ে মিছিল করে শো ডাউন দেন।

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে  নগরীর প্রবেশ পথ নগরীর মডার্ন মোড়, সাত মাথা, মেডিকেল মোডে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ নগরীতে কোন যানবাহন ছাড়াও অটো রিকশা,মোটরসাইকেল ঢুকতে দিচ্ছে না।

বিভিন্ন জেলা থেকে আগত নেতাকর্মীরা পায়ে থেটে সমাবেশ স্থলে আসছেন।

এদিকে শুক্রবার রাত ১০ টার দিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জ ফখরুল ইসলাম আলমগীর সমাবেশ মঞ্চে যান।

এসময় তিনি মঞ্চ থেকে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে হাত নেড়ে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।  বিকেল ৩টায় বিএনপির এই গণসমাবেশে অনুষ্ঠিত হবে।

আরও আপডেট নিউজ জানতে ভিজিট করুন