• শনি. জানু ২৮, ২০২৩

শিশু আয়াতের লাশের আরেকটি অংশ উদ্ধার

ডিসে ১, ২০২২

শিশু আয়াতের লাশের আরেকটি অংশ উদ্ধার

চট্টগ্রামের খুন হওয়া ৫ বছরের শিশুকন্যা আলিনা ইসলাম

আয়াতের দেহের খণ্ডিত অংশের পর এবার মাথার অংশ

উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম নগরের ইপিজেড

আকমল আলী ঘাটের স্লুইসগেট এলাকা থেকে শিশুটির খণ্ডিত

মাথাটি উদ্ধার করা হয়। এর আগে বুধবার (৩০ নভেম্বর) একই

এলাকা থেকে আয়াতের পলিথিন মোড়ানো পায়ের অংশ উদ্ধার করেছিলো পিবিআই।

ঘটনাস্থল থেকে পিবিআই চট্টগ্রামের পরিদর্শক মুস্তাফিজুর

রহমান চৌধুরী জানান, তাঁরা টানা ছয় দিন ধরে তল্লাশি কার্যক্রম চালাচ্ছেন।

আজ সকালে পিবিআইয়ের একটি দল ঘটনাস্থলে গেলে

স্থানীয় জেলেরা একটি মাথা দেখতে পাওয়ার কথা জানান।

পরে মাথাটি উদ্ধার করে আলিনার পরিবারকে খবর দেওয়া হয়।

পরিবার নিশ্চিত করেছে মাথাটি আলিনারই। বুধবার বিকেলে

একই এলাকা থেকে আলিনার দুটি পা উদ্ধার করা হয়েছিল।

গত ১৫ নভেম্বর নিখোঁজ হয় আলিনা। নিখোঁজের ১০ দিন

পর পরিবারের সদস্যরা জানতে পারেন, ৫ বছরের শিশু

আলিনাকে হত্যা করে ছয় টুকরা করে ফেলে দেওয়া হয়েছে।

পিবিআই জানায়, আবির আলী মুক্তিপণের উদ্দেশ্যে

ঘটনার দিন বিকেলে আয়াতকে অপহরণ করে। পরে

আয়াত চিৎকার করলে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে।

পরে বাজারের ব্যাগে ভরে আকমল আলী সড়কের বাসায়

নিয়ে ছয় টুকরো করে। তারপর কাট্টলীর সাগরপাড়ে ফেলে দেয়।

গ্রেফতারের পর আবির আলী সব কিছু স্বীকার করে নেয়।

মরদেহ টুকরো করার কাজে ব্যবহার করা বটি ও এন্টি

কাটার উদ্ধার করা হয়েছে আবির আলীর বাসা থেকে।

গত ২৪ নভেম্বর রাতে ইপিজেডের আকমল আলী রোডের

পকেটগেট এলাকার বাসা থেকে আয়াতদের ভাড়াটিয়া আবির আলীকে গ্রেফতার করা হয়।

পরের দিন থেকে চলা অভিযানে আয়াতের রক্তমাখা কাপড় ও স্যান্ডেল উদ্ধার করা হয়।

নগরীর ইপিজেড থানাধীন নয়ারহাট এলাকার বাসিন্দা

সোহেল রানা ও সাহিদা আক্তার তামান্না দম্পতির মেয়ে ছিল আয়াত।

তিনতলা ভবনের মালিক সোহেলের ওই এলাকায় একটি মুদির দোকান আছে।

আয়াত স্থানীয় তালীমূল কোরআন নূরানী মাদরাসার হেফজখানার ছাত্রী ছিল।

আরও আপডেট নিউজ জানতে ভিজিট করুন